1. admin@dainikjamunaexpress.com : admin :
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ১১:০৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
বাগবাটি রাজিবপুর অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী স্কুলে হুইল চেয়ার বিতরণ বেলকুচিতে পৌর মেয়রসহ তার শিশু সন্তানকে হত্যার উদ্দেশ্য হামলা,হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল আটোয়ারীতে পুলিশ সদস্যের পরিবারকে মারধর, আহত ৩ সিরাজগঞ্জ পৌরসভার কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি হান্নান খান, সম্পাদক আল আমিন সিরাজগঞ্জে সাংবিধানিক ও আইনগত অধিকার বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত বেলকুচিতে শিশু সন্তানসহ পৌর মেয়র উপর হামলার এমপির এপিএসসহ ৬০জনের বিরুদ্ধে মামলা কাজিপুরে শিক্ষকের হাতে ধর্ষিত প্রতিবেশী নারী কুষ্টিয়ায় আনসার নিয়োগ ডিউটিতে কোটি টাকার বাণিজ্য সিরাজগঞ্জে কাভার্ডভ্যান ভর্তি গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারীকে আটক করেছে র‌্যাব বেলকুচিতে সাংবাদিকের উপর হামলা,মুঠোফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায় সংবাদ প্রকাশ করলে প্রাণনাশের হুমকি

আশ্রয়ণের ঘরের নির্মাণকাজ মন ছুঁয়েছে সুন্দরগঞ্জের আপামর জনতার

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২ মে, ২০২৩
  • ১৩৪ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

সুন্দরগঞ্জ! গাইবান্ধা জেলার মধ্যে ১৫ টি ইউনিয়নের সমন্বয়ে গঠিত একটি উপজেলা। বৃহৎ এ উপজেলায় মুজিব শতবর্ষের ঘরের সঠিক মানের রুপ দিয়ে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ওয়ালিফ মন্ডল।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ভূমিহীনদের জন্য এক অভাবনীয় স্বপ্নের বহিঃপ্রকাশ। দেশের ভূমিহীনরা পেয়েছেন তাঁদের মাথা গোঁজার ঠাঁই। বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নের মাধ্যমে বিশ্বের কাছে বাংলাদেশকে একটি রোল মডেল করতে নিয়েছেন সেরা পদক্ষেপ।
সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৪র্থ পর্যায়ের ৫০০ টি ঘরের নির্মাণকাজ প্রায় শেষের পথে। সেমি পাঁকা ঘর,বারান্দা,রান্না ঘর পেয়ে বেজায় খুশি আশ্রয় ছিল না এমন ভূমিহীনেরা।

শ্রীপুর,কাপাসিয়া,রামজীবন,বামনডাঙ্গায় চলমান ৫০০ টি ঘরের কাজের মান যেন মন ছুঁয়ে যাওয়ার মতো। নির্মাণ কাজে ব্যবহৃত ইট,খোয়া,বালু,টিন,রড,সিমেন্ট, কাঠ এর গুণগত মান বুঝিয়ে দেয় কাজের স্থায়িত্ব কেমন হয়েছে।

উপজেলার কাপাসিয়া ইউনিয়নের ঘরের কাজগুলো ছিল অনেক চ্যালেন্জের মতো। এখানে নদী পেরিয়ে দূর্গম চরে অসহায় ভূমিহীনদের কাছে তাদের কাঙ্ক্ষিত ঘর পৌঁছে দেওয়া ছিলো অনেক কষ্ট সাধ্য। দিনরাত নিরলস পরিশ্রম করে ঘরগুলোর বাস্তবায়ন যেন চমকে দেয়ার মতো।

ইউপি চেয়ারম্যান মঞ্জু মিয়া জানান, নদী বিধৌত আমার এ ইউনিয়ন। ২ হাজারের বেশি ভূমিহীন পরিবার আছে। পিআইও স্যারের সহযোগিতায় দূর্গম চরে ঘর দেওয়া সম্ভব হয়েছে। আরও ঘরের প্রয়োজন আমার এ ইউনিয়নে। তবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পিআইও স্যারের সহযোগিতায় ঘরের কাজ খুবই ভালো হয়েছে।

ঘরের কাজের বিষয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ওয়ালিফ মন্ডল জানান, বৃহৎ এ উপজেলায় মুজিব শতবর্ষের ঘরের নির্মাণকাজ ভালোভাবে করার চেষ্টা করছি৷ কারণ এই ঘর হলো অসহায় ভূমিহীনদের আশ্রয়স্থল। ভালো কাজের মধ্য দিয়েই তাদের মাঝে থাকতে চাই।

সচেতন মহল বলছেন, ওয়ালিফ মন্ডল তার কর্মগুণেই আজ প্রশংসায় বিমোহিত। আশ্রয়ণ প্রকল্পের সঠিক কাজের বাস্তবায়িত রুপ বলে দেয় তিনি কেমন!

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
এই নিউজ পোর্টালের কোন ছবি বা তথ্য বিনা অনুমতিতে হস্তান্তর নিষেধ। সর্বস্বত্ত্ব www.jamunaexpress.com কর্তৃক সংরক্ষিত
Theme Customized By BreakingNews